শিল্প-সাহিত্য

শিল্প-সাহিত্য

রাজধানীতে ‘ইন্ক অফ ইন্ডিপেন্ডেন্স : আর্ট ও কুইজ প্রতিযোগিতা’ অনুষ্ঠিত

‘এক সাগর রক্তের বিনিময়ে বাংলার স্বাধীনতা আনল যারা আমরা তোমাদের ভুলব না’, গীতিকার গোবিন্দ হালদারের কালজয়ী গানের কথাগুলো চিরগাথা করে রাখার জন্য এবং তরুণদের মাঝে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ছড়িয়ে দিতে গোবাল ল’ থিংকার্স সোসাইটি পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয় ইন্ক অফ ইন্ডিপেন্ডেন্স : আর্ট এবং কুইজ প্রতিযোগিতা।

গত ২৬ মার্চ রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় জিয়া’স আর্ট গ্যালারিতে প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে বক্ততারা শিশুদের মাঝে স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধসহ বিভিন্ন জীবনমুখি আলোচনা করেন। উদ্বোধনী বক্তব্যে জিএলটিএসের প্রতিষ্ঠাতা ও তরুণ আইনজীবী উপস্থিত সকলকে স্বাধীনতার শুভেচছা জানিয়ে বলেন, আমরা জিএলটিএস ১০৫টি দেশে তরুণদের নিয়ে কাজ করছি। তরুণদের মাঝে নেতৃত্বের আন্দোলন ছড়িয়ে দেওয়ার লক্ষ্যেই আমরা এ ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করি যাতে তরুণরা আগামীর সুন্দর ভবিষ্যতের দায়িত্ব পালন করতে পারে।

অনুষ্ঠানের অতিথি ও অংশগ্রহণকারী প্রতিযোগীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ভিডিও বার্তা প্রেরণ করেন গ্লোবাল পার্টনার URI মাল্টিরিজিয়নের জন্য আঞ্চলিক সমন্বয়কারী সামির ফাতমা বারুচিজা।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত সচিব (আরটিডি) ড. এসকে মো. রেজাউল ইসলাম শিশু-কিশোরদের তার চোখে দেখা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের বর্ণনা দেন। তিনি নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধে ইতিহাস জানতে আগ্রহী হওয়ার জন্য উৎসাহ দেন।

উপস্থিতি অতিথি এবং আর্ট প্রতিযোগিতার বিচারক উন্মাদের সম্পাদক আহসান হাবীব বলেন, শিশুদের মুক্ত চিন্তা করার জন্য আর্ট শেখা প্রয়োজন। তিনি নতুন প্রজন্মকে কমিক্স আর্ট করার উপর তাগিদ দিয়ে বলেন, তোমাদের চিন্তা শক্তি বিকাশিত করার জন্য কমিক্স আঁকা প্রয়োজন এবং অভিভাবকদের এটি নিয়ে সচেতন হওয়া প্রয়োজন।

আলোচনায় আরো বক্তব্য রাখেন জিএলটিএসের উপদেষ্টা মেন্টার ও ই-ক্যাবের ফোকাস পয়েন্ট স্পেশালিস্ট ফারহা মাহমুদ ট্রিনা। তিনি বলেন, তরুণদের আর্টের প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে উদোক্তা হওয়া প্রয়োজন।

অন্যান অতিথির মাঝে জিএলটিএসের প্রধান উপদেষ্টা ও ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ড. ডেভিড ডাউল্যান্ড তার ’৭১-এর স্মৃতি চারণে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন তিনি আমেরিকায় বসবাস করতেন। তিনি শিশু ছিলেন তবে মুক্তিযুদ্ধের দৃশ্য টেলিভিশনে দেখতেন। এতে তিনি খুবই ব্যথিত হতেন।

এছাড়া অনুষ্ঠানে অন্যান্য অতিথি জিএলটিএস এর কো-ফাউন্ডার ও জেনারেল সেক্রেটারি আহসানুল আলম ও লিডার মাহির দাইয়ান উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা শেষে জিএলটিএসের পক্ষ থেকে জয়ীতা বিশ্বাস ত্রয়ী ও মোনালিসা মোনা দেশত্ববোধ গান পরিবেশন করেন।

আর্ট ও কুইজ প্রতিযোগিতায় বিচারক হিসেবে হিসেবে উপস্থিতি ছিলেন উন্মাদের সম্পাদক আহসান হাবীব, উন্মাদের সিনিয়র কার্টুনিস্ট আরিফ ইকবাল, আর্কিটেক্চার ও মাল্টিডিসপ্লেনারি আর্টিস্ট ভেনেসা কায়সার, শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকুয়াকালচার বিভাগের চেয়ারম্যান জনাব মীর মোহাম্মদ আলী, জিয়া’স আর্ট গ্যালারির প্রিন্সিপাল নাসিম আরা শেইক।

সাংস্কৃতিক অংশ শেষে উপস্থিত অতিথি ও বিচারকরা বিজয়ীদের মাঝে সার্টিফিকেট ও ক্রেস্ট তুলে দেন। পরে জিএলটিএসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা এবং জেনারেল সেক্রেটারির জনাব আহসানুল আলম সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠান সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

অনুষ্ঠানে গ্লোবাল পার্টনার ছিল URI. আয়োজক পার্টনার ছিল জিয়া’স আর্ট গ্যালারি ও উন্মাদ। অনুষ্ঠানটি কো-অর্ডিনেট করে জিএলটিএস তরুণ লিডার শামস খান, জয়িতা বিশ্বাস ত্রয়ী এবং অরুনাভা পল স্বপ্ন।

বিষয়:
পরবর্তী খবর

নজরুল জয়ন্তী আয়োজন ২০২৪

তুমি ধূমকেতুর মতো আসো

তোমার শব্দের ধ্বনি পৌঁছেছে মানুষের হৃদয়ে,
তোমার শব্দ মানুষকে আনন্দে ভাসায়।
ওই যে তোমার সেই শ্যামা সংগীত–
“কালো মেয়ে পালিয়ে বেড়ায়/ কে দেবে তায় ধ’রে”
তুমিও ‘বিষের বাঁশি; ছেড়ে কালো মেয়ের মতো পালিয়ে গেলে,
তুমি ধূমকেতুর মতো আসো, বুকের আঁচল পেতে নেবে আমাদের সাহিত্য।
তারপর তুমি আর আমাদের কবিতা পাশাপাশি হেঁটে যাবে বহুদূর।
কোন উপমা নেই, তোমার রসদ চায় কবিতা সকাল সন্ধে।
ধন্য ধন্য তুমি সাম্যের গান গেয়ে,
ভালোবাসা এনেছিলে স্বর্গ থেকে বেয়ে।‌

প্রেম-দ্রোহ আর সাম্য নিয়ে ধূমকেতুর মতো আরেকবার আসো।

লেখক : কবি

পরবর্তী খবর

নজরুল জয়ন্তী আয়োজন ২০২৪

দুঃখু মিঞার জন্মদিনে

ঝাকড়া চুলে দুঃখু মিঞার
শিশু কাল কতো-না
দুঃখ-কষ্টে ভরা,
তুমি বিদ্রোহী কবি-নজরুল
তোমার লেখনী-তে
অগ্নিঝরা।

 

লেখক : ছড়াকার

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত