অর্থ ও বাণিজ্য, দেশ

অর্থ ও বাণিজ্য, দেশ

বাঘার ঐতিহাসিক ঈদ মেলার ডাক ২৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা

আসন্ন ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার ঐতিহাসিক ঈদ মেলার ইজারার ডাক সম্পন্ন হয়েছে। এ বছর ২৭ লাখ ৪০ হাজার টাকায় ইজারা দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজশাহীর বাঘা মাজার শরীফ চত্বরে ১৫ দিনের জন্য (ঈদের দিন থেকে পরবর্তী ১৫ দিন) উন্মুক্ত ডাকের মাধ্যমে এ ইজারা সম্পন্ন করা হয়।

জানা যায়, এ বছর মেলার জন্য উন্মুক্ত ডাকে অংশগ্রহণের জন্য ৮ লাখ টাকা করে বিডি জমা দিয়েছিলেন ২০ জন। তবে উন্মুক্ত ডাকে অংশগ্রহণ করেন ১০ জন। এরমধ্যে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে (২৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা) বাঘা পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেনকে ১৫ দিনের জন্য এ মেলা ইজারা দেওয়া হয়। দ্বিতীয় ডাককারি ছিলেন সাইফুল ইসলাম (২৭ লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকা), এবং তৃতীয় ডাককারী ছিলেন সাংবাদিক আখতার রহমান (২৭ লক্ষ ২০ হাজার টাকা)।

রাজশাহীর বাঘা উপজেলা আনসার ভিডিপি অফিসার মিলন কুমার দাসের পরিচালনায় মেলা ইজারার সময় উপস্থিত ছিলেন বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি অফিসার শফিউল্লাহ সুলতান, মাজারের সদস্য সচিব মতোয়াল্লী খন্দকার মুনসুরুল ইসলাম রইস, বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম, বাঘা উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক (সাবেক) ও মোজাহার হোসেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ নসিম উদ্দিন, সিরাজুল ইসলাম মন্টু, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা খাতুন লতা, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য মহিদুল ইসলাম প্রমুখসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও সাংবাদিকবৃন্দ।

এ বিষয়ে বাঘা উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারিকুল ইসলাম বলেন, মেলার ডাক সম্পন্ন হয়েছে। মেলার স্বাভাবিক পরিবেশ বজায় রেখে অনৈতিক কর্মকাণ্ড বিরত রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকার বাহিনী সদা প্রস্তুত থাকবে। সেই সাথে সুষ্ঠুভাবে মেলা সমাপ্ত করতে তিনি স্থানীয়দের সহায়তা কামনা করেছেন।

প্রসঙ্গত, বাঘা ঈদমেলার ইতিহাস প্রায় ৫শ’ বছর আগের। প্রতি বছর ঈদ-উল-ফিতরের দিন থেকে এ মেলা শুরু হয়। চলে ১৫ দিনব্যাপী। এতে বিভিন্ন অঞ্চলের ব্যবসায়ীরা আসেন। এ সময় বাংলাদেশে থাকা আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে সীমান্তের ওপারে থাকা (ভারত) লোকজন স্ত্রী-সন্তান, পরিবার-পরিজন নিয়ে অনেকেই এপারে আসেন।

মাঝখানে করোনার কারণে বাঘার মেলা বন্ধ হয়ে যায়। পাঁচ বছর পর আবার বাঘার মেলা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

বিষয়:
পরবর্তী খবর

উদ্যোক্তাদের ‘দক্ষতা বৃদ্ধি প্রশিক্ষণ’ দিচ্ছে এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশ

এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশের আয়োজনে রাজধানীর টিকাটুলীতে অবস্থিত এফবিসিসিআই ইনোভেশন অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার মিলনায়তনে শুরু হয়েছে দুই দিন ব্যাপী ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের জন্যে দক্ষতা বৃদ্ধি এবং ঋণ প্রস্তুতি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ।

বুধবার (১২ জুন) সকালে শুরু হওয়া এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে প্রথম ব্যাচে ২৫ জন উদ্যোক্তাকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। প্রথম দিন উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই ইনোভেশন অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিকর্ণ কুমার ঘোষ।

প্রধান অতিথি তাঁর উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের ঋণ শোধ করতে হলে তাঁদের স্বপ্নটাকে বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। তাঁদের স্বপ্ন ছিল একটা সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ। সেই লক্ষ্যে অসম্ভবকে সম্ভব করার সাহসীকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। উদ্যোক্তাদের সেই সাহস আছে। তাদের সাহস, আত্মবিশ্বাস এবং প্রস্তুতি পারে দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে। তিনি বলেন, যারা উদ্যোক্তা তারা ঝুঁকি নিতে জানে। ঝুঁকি নেওয়া ছাড়া বড় পরিবর্তন সম্ভব না। তাই চাকরিজীবীদের দিয়ে যে অগ্রগতি সম্ভব না, উদ্যোক্তাদের দিয়ে তা সম্ভব। বিকর্ণ কুমার ঘোষ উদ্যোক্তাদের যেকোনো প্রয়োজনে পাশে থাকার প্রত্যয় ঘোষণা দেন।

প্রথম দিনের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশনের মডারেটর ও ঢাকা জেলা এম্বাসাডর হোসাইন আল মামুন এবং টার্টেল ভেঞ্চারের মেহেনাজ জামান।

আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের জন্যে দক্ষতা বৃদ্ধি এবং ঋণ প্রস্তুতি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কার্যক্রম তারা নিয়মিত পরিচালনা করবেন। প্রথম ব্যাচে এবার বাছাইকৃত পঁচিশজন উদ্যোক্তাকে সুযোগ দিতে পেরেছেন। ভবিষ্যতে আরও বেশি সংখ্যক উদ্যোক্তাকে এই প্রশিক্ষণের আওতায় আনার পরিকল্পনা রয়েছে। তাদের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, উদ্যোক্তাদের জন্য বিনিয়োগ এবং লোন সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোকে সহজ করতে তারা কাজ করছেন।

এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশের এই আয়োজনে পার্টনার হিসেবে রয়েছে নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশন, টার্টেল ভেঞ্চার এবং দ্রুত লোন। আগামীকাল প্রথম ব্যাচের এই প্রশিক্ষণ শেষ হবে।

পরবর্তী খবর

ঠাকুরগাঁওয়ে ১০০ বোতল ফেনসিডিল আটক

ঠাকুরগাঁওয়ে ১০০ বোতল ফেনসিডিলসহ ১ জন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার দিবাগত রাত আনুমানিক ৮টায় সদর উপজেলার খোঁচাবাড়ী বাজার হতে নারায়ণগঞ্জগামী যাত্রীবাহী বাস বন্ধু এক্সপ্রেস নামক কোচ থেকে তাকে আটক করে পুলিশ। আটককৃত মোঃ দুলাল হাসান (১৬) বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার ভানোর ইউনিয়নের কলন্দা পশ্চিম পাড়া গ্রামের মোঃ শাহিনুর ইসলামের ছেলে। এই ঘটনায় একই ইউনিয়নের ভানোর আম পাথারী এলাকার আব্দুস সালামের ছেলে মোঃ কামাল হোসেন (৩৫) পলাতক রয়েছে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি এবিএম ফিরোজ ওয়াহিদ জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এস‌আই (নি‍ঃ) আব্দুস সোবাহান ওই এলাকায় মাদকদ্রব্য অভিযান পরিচালনা করে ১০০ বোতল ফেনসিডিলসহ একটি অপ্রাপ্ত বয়স্ক শিশুকে আটক করে। মাদক ব্যবসায়ীরা অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে ভারতীয় ফেনসিডিল সংগ্রহ করে দেশের বিভিন্ন স্থানে তা বিক্রি করছে। আটককৃত কিশোরের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সেই সাথে পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত