দেশ

দেশ

সাতক্ষীরায় সরিষার বাম্পার ফলনেও অর্জিত হয়নি লক্ষ্যমাত্রা

সাতক্ষীরায় চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সরিষার বাম্পার ফলন ও দাম ভালো হলেও অর্জিত হয়নি লক্ষ্যমাত্রা। তবে এবছর সরিষা ক্ষেত থেকে প্রায় সাড়ে ৯ সহস্রাধিক মণ মধু সংগৃহীত হয়েছে বলে দাবি করেছে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর (খামার বাড়ি)।

সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর (খামার বাড়ি) থেকে জানা যায়, চলতি ২০২৩-২৪ মৌসুমে জেলায় সাতটি উপজেলায় সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৯ হাজার ১৫০ হেক্টর জমি। সে অনুযায়ী চাষ হয়েছে আট হাজার ৪০৫ হেক্টর জমিতে।সদর উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় তিন হাজার ৪৬০ হেক্টর জমি, অর্জিত হয় দুই হাজার ৮২৫ হেক্টর জমি।কলারোয়া উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় তিন হাজার ৪৭৫ হেক্টর জমি, চাষ হয় তিন হাজার ৩৭০ হেক্টর জমিতে। তালা উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৪১০ হেক্টর জমিতে, চাষ হয় ৫৬০ হেক্টর জমিতে। দেবহাটা উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় এক হাজার ১২৫ হেক্টর, চাষ হয় এক হাজার একশ হেক্টর জমিতে। কালীগঞ্জ উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৪১০ হেক্টর জমি, অর্জিত হয় ৩১০ হেক্টর জমি। আশাশুনি উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ২২০ হেক্টর জমি, অর্জিত হয় ২১০ হেক্টর জমি এবং শ্যামনগর উপজেলায় আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয় ৫০ হেক্টর জমি, অর্জিত হয় ৪০ হেক্টর জমি।

সাতক্ষীরার সদর উপজেলার সরিষা চাষি আতাউর রহমান জানান, গত বছর তিন বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করেছিলাম। আর এবার পাঁচ বিঘা জমিতে আবাদ করেছি। গত বছর সরিষা আবাদ করতে প্রতি বিঘায় খরচ হয়েছিল সাড়ে চার হাজার টাকা। গতবারের তলুনায় এবার খরচ একটু বেশি হলেও সব খরচ বাদ দিয়ে তার ২৫ হাজার টাকা মতো লাভ হবে বলে তিনি আশা করছেন।

সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহসিন আলী জানান, সরিষা ক্ষেতের পাশে মৌমাছির বক্স স্থাপন করা হলে পরাগায়ণ হয় অনেক বেশি। এতে স্বাভাবিকের চেয়ে ২৫-৩০ শতাংশ সরিষা উৎপাদন বাড়ার সম্ভাবনা থাকে। এবার এক হাজার ৩০০ হেক্টর সরিষা জমি মৌ বাক্সের আওতায় আনা হয়েছে। এসব ক্ষেতের পাশে স্থাপন করা হয় দুই হাজার ৩৩০টি মৌ বাক্স। আর এ থেকে চলতি মৌসুমে প্রায় ৯ হাজার ২০০ মণ মধু উৎপাদিত হয়েছে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। উন্নতমানের বীজ ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ সহয়তা দিতে পারলে সরিষা চাষে কৃষক অনেক বেশি লাভবান হবেন।

সাতক্ষীরা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের (খামার বাড়ি) উপ-পরিচালক আবদুল মান্নান জানান, চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সরিষার ফলন ভালো হয়েছে। এতে তুলনামূলকভাবে চাষিরা লাভবান হবেন। এবছর কৃষকদের সরিষা চাষে আগ্রহ বাড়াতে প্রয়োজনীয় সকল পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল। সরকারি লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হলেও জেলায় সরিষার ফলন ভালো হয়েছে। দামও ছিল অনেক ভালো।

বিষয়:
পরবর্তী খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দিনভর নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। রবিবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য শুরু হয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। পরে নেতাকর্মীরা শহরের বঙ্গবন্ধু মঞ্চে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান।

বিকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে শহীদ মিনার চত্বরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য মুঃ জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন– জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নারী সংসদ সদস্য জারা জাবীন মাহবুবসহ অনান্যরা।

পরে নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে শহরে বিশাল শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে আবারও অনুষ্ঠান স্থলে এসে শেষ হয়। শেষে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের এ আয়োজনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা ছাড়াও জেলার অনান্য উপজেলা থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এসে যোগ দেয়। এতে শহর জুড়েই যেন ছিলো উৎসব।

পরবর্তী খবর

‘সবার জন্য শিল্পচর্চা’ স্লোগানে রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্রের যাত্রা শুরু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের ফিল্টিপাড়ায় কোল ক্ষুদ্র জাতিসত্তার পরিবারের শিক্ষার্থীদের সম্পূর্ণ বিনাবেতনে শিল্পচর্চা চালু করলো রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্র। শনিবার বিকেলে রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

ঝিলিম ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাসানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা ফারুকুর রহমান, প্রথম আলো স্টাফ রিপোর্টার আনোয়ার হোসেন দিলু, জেলা স্কাউটসের সহকারী কমিশনার আশরাফুল আম্বিয়া, সম্পাদক গোলাম রশীদ, জজ কোর্টের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ভব সুন্দর পাল, কোলদের নারী নেত্রী কল্পনা মুরমু, কবি ইহান অরভিন, আনিফ রুবেদ, ইউপি সদস্য শরিয়ত আলী, সুশান্ত সাহা, ইউপি সচিব মৃণাল কান্তি পাল, চারুশিল্পী সমর সাহা, শিক্ষক ও বাদ্যশিল্পী রাজকুমার দাস, সমাজসেবক স্বপন কুমার ঘোষ প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন রঙের ভাষা আর্ট এন্ড ডিজাইন স্কুলের পরিচালক জগন্নাথ সাহা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্কুল শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম।

বক্তারা বলেন, পিছিয়ে পড়া ক্ষুদ্রজাতিসত্তার শিশুদের এগিয়ে নেওয়ার জন্য রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্র কাজ করবে। সামর্থ্য অনুযায়ী এ শিল্প চর্চা কেন্দ্রের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন বক্তারা।

এ কেন্দ্রের পরিচালক জগন্নাথ সাহা বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ের ১৫ জন ও মাধ্যমিক পর্যাযের ১৫ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে যাত্রা শুরু করবে রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্র। এখানে চিত্রাঙ্কনসহ কুটির শিল্প বিষয়ক শিক্ষা দেওয়া হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত