নির্বাচিত, স্বাস্থ্য

নির্বাচিত, স্বাস্থ্য

নতুন করে ওষুধের দাম বাড়াতে চায় ওষুধশিল্প মালিক সমিতি

গত দুই বছরে প্রায় সব ধরনের ওষুধের দফায় দফায় মূল্যবৃদ্ধির পর আবারও নতুন করে দাম বাড়াতে গত বৃহস্পতিবার বৈঠক করেছেন ওষুধশিল্প মালিক সমিতির নেতারা। তারা বলছেন, ব্যাংকঋণের সুদ, জ্বালানি খরচ এবং ডলারের চড়া দরের কারণে ওষুধের উৎপাদন খরচ অনেক বেড়ে গেছে।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুধু উৎপাদন খরচ, লভ্যাংশের হিসাব কষে ওষুধের মূল্যবৃদ্ধি কোনোভাবে যৌক্তিক হতে পারে না।এমনিতেই প্রায় সব ধরনের নিত্যপণ্যের দাম চড়া থাকায় বেশ অস্বস্তিতে রয়েছে নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা। তাই জনগণের ক্রয়ক্ষমতা, আর্থ-সামাজিক অবস্থা বিবেচনা করতে হবে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরকে। এখানে মানুষের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে, না হলে ধীরে ধীরে দেশের স্বাস্থ্যসেবা নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তের নাগালের বাইরে চলে যাবে। এমন পরিস্থিতিতে ওষুধ উৎপাদনের খরচ কমাতে সরকারের বিভিন্ন ভ্যাট, ট্যাক্স কমানোর তাগিদ দিয়েছেন তারা।

নতুন করে ওষুধের দাম বাড়ানো নিয়ে গত কয়েক দিন বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাংলাদেশ ওষুধশিল্প মালিক সমিতির নেতাদের বক্তব্য দিতে দেখা গেছে। তাঁরা বলেছেন, ঋণের সুদহার বেড়ে যাওয়া, গ্যাস-বিদ্যুতের বাড়তি দর, জ্বালানি সরবরাহ কমে যাওয়া ও কাঁচামাল ক্রয়ে ডলার সংকট ওষুধের উৎপাদন খরচ বাড়িয়ে দিচ্ছে।

বাংলাদেশ ওষুধশিল্প মালিক সমিতির সিনিয়র সহসভাপতি আবদুল মুক্তাদির বলেন, ‘এখন ডলারের দাম বেড়ে অফিশিয়ালি ১১০ থেকে ১১১ টাকা হয়েছে, আগে যা ছিল ৮৬ টাকা। এর মধ্যেই আমরা ওষুধের জোগান দিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু এ রকম অবস্থায় আর বেশি দিন চলা সম্ভব নয়। আমরা নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি পর্যায়ক্রমে দাম বাড়ানোর, যাতে মানুষের জন্য সহনশীল হয়। সরকারের ঊর্ধ্বতন ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করে বাড়ানো হবে।’

বাংলাদেশ ওষুধশিল্প মালিক সমিতির মহাসচিব এস এম শফিউজ্জামান বলেন, ‘ওষুধের কাঁচামাল কিনতে আমরা এলসি খুলতে পারছি না। ব্যাংক বলছে, আপনারা আগাম টাকা দেন। কেউ ২০ শতাংশ, কেউ ৩০ শতাংশ দিয়েছে। এখন দাম বাড়ানো নিয়ে আমরা নিজেরা আলোচনা করছি। পরে দামের বিষয়টি প্রস্তাব করব।’

গত দুই বছরে অত্যাবশ্যকীয় ওষুধের মূল্যবৃদ্ধির বিষয়ে দুই দফা প্রজ্ঞাপন দেওয়া হলেও বাজারে থাকা ৯০ শতাংশের বেশি ওষুধের দাম বেড়েছে। ২০২২ সালের ২০ জুলাইয়ে প্রথম প্রজ্ঞাপনটি প্রকাশ করে ২০টি জেনেরিকের ৫৩টি ব্র্যান্ডের ওষুধের দাম বাড়ানো হয়। এর পাঁচ মাসের মধ্যে ৪ ডিসেম্বর দ্বিতীয়বার প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ২৪টি ওষুধের দাম বাড়ায় ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের তথ্য মতে, গত বছরের মে মাসে দেশের শীর্ষ ছয় প্রতিষ্ঠানের উৎপন্ন ২৩৪টি জীবন রক্ষাকারী ওষুধের দাম ১০ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। তবে এর কোনো প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করেনি ঔষধ প্রশাসন।

বিষয়:
পরবর্তী খবর

উদ্যোক্তাদের ‘দক্ষতা বৃদ্ধি প্রশিক্ষণ’ দিচ্ছে এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশ

এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশের আয়োজনে রাজধানীর টিকাটুলীতে অবস্থিত এফবিসিসিআই ইনোভেশন অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার মিলনায়তনে শুরু হয়েছে দুই দিন ব্যাপী ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের জন্যে দক্ষতা বৃদ্ধি এবং ঋণ প্রস্তুতি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ।

বুধবার (১২ জুন) সকালে শুরু হওয়া এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে প্রথম ব্যাচে ২৫ জন উদ্যোক্তাকে সুযোগ দেওয়া হয়েছে। প্রথম দিন উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই ইনোভেশন অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিকর্ণ কুমার ঘোষ।

প্রধান অতিথি তাঁর উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের ঋণ শোধ করতে হলে তাঁদের স্বপ্নটাকে বাস্তবায়নে কাজ করতে হবে। তাঁদের স্বপ্ন ছিল একটা সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ। সেই লক্ষ্যে অসম্ভবকে সম্ভব করার সাহসীকতা নিয়ে কাজ করতে হবে। উদ্যোক্তাদের সেই সাহস আছে। তাদের সাহস, আত্মবিশ্বাস এবং প্রস্তুতি পারে দেশের অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে। তিনি বলেন, যারা উদ্যোক্তা তারা ঝুঁকি নিতে জানে। ঝুঁকি নেওয়া ছাড়া বড় পরিবর্তন সম্ভব না। তাই চাকরিজীবীদের দিয়ে যে অগ্রগতি সম্ভব না, উদ্যোক্তাদের দিয়ে তা সম্ভব। বিকর্ণ কুমার ঘোষ উদ্যোক্তাদের যেকোনো প্রয়োজনে পাশে থাকার প্রত্যয় ঘোষণা দেন।

প্রথম দিনের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করেন নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশনের মডারেটর ও ঢাকা জেলা এম্বাসাডর হোসাইন আল মামুন এবং টার্টেল ভেঞ্চারের মেহেনাজ জামান।

আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ক্ষুদ্র ও মাঝারী উদ্যোক্তাদের জন্যে দক্ষতা বৃদ্ধি এবং ঋণ প্রস্তুতি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কার্যক্রম তারা নিয়মিত পরিচালনা করবেন। প্রথম ব্যাচে এবার বাছাইকৃত পঁচিশজন উদ্যোক্তাকে সুযোগ দিতে পেরেছেন। ভবিষ্যতে আরও বেশি সংখ্যক উদ্যোক্তাকে এই প্রশিক্ষণের আওতায় আনার পরিকল্পনা রয়েছে। তাদের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে, উদ্যোক্তাদের জন্য বিনিয়োগ এবং লোন সংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোকে সহজ করতে তারা কাজ করছেন।

এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশের এই আয়োজনে পার্টনার হিসেবে রয়েছে নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশন, টার্টেল ভেঞ্চার এবং দ্রুত লোন। আগামীকাল প্রথম ব্যাচের এই প্রশিক্ষণ শেষ হবে।

পরবর্তী খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দিনব্যাপী চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত

রোটারি ক্লাব অব ঢাকা সেন্ট্রাল ও লায়ন্স ক্লাব অব রাজশাহীর যৌথ উদ্যোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিনামূল্যে চক্ষু শিবির অনুষ্ঠিত হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সাধারণ পাঠাগারে শুক্রবার দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত চক্ষু শিবিরে রোগীদের চিকিৎসা সেবা দেন রাজশাহী লায়ন্স আই হসপিটালের চিকিৎসরা। এতে সহযোগিতা করে বাংলাদেশ স্কাউটস চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ও লিও ক্লাব অব রাজশাহী মেট্রোপলিটন।

চক্ষু চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন লায়ন্স ক্লাব অব রাজশাহীর সাবেক প্রেসিডেন্ট ইফতিয়ার মাহমুদ বাবু, লায়ন মামুন অর রশিদ, লায়ন মুনজুর রহমান খান, লায়ন নুরুল ইসলাম, লায়ন জুলকার নাইন, রোটারি ক্লাব অব ঢাকা সেন্ট্রালের সাবেক সেক্রেটারি রোটারিয়ান আরিফুর রহমান সুমন ও লিও ক্লাব অব রাজশাহী মেট্রোপলিটন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্কাউট সদস্যরা।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত