দেশ

দেশ

রাজশাহীতে হামলার প্রতিবাদ ও জমি দখলমুক্ত করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

রাজশাহীতে নিজের জমিতে কাজ করতে গিয়ে রাসিক ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবাহান লিটন ও নূর আলম লুথু কর্তৃক সন্ত্রাসী বাহিনীর বাধা ও হামলার প্রতিবাদে এবং জমিটি দখলমুক্ত করার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগী শাহ্ শাবাব বাপ্পা।

শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে মহানগরীর শিরোইলে অবস্থিত রাজশাহী বরেন্দ্র প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন ভুক্তভোগী।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ভূক্তভোগী শাহ্ শাবাব বাপ্পা বলেন, আমার নিজের জমিতে গত মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় দেয়াল দিতে গেলে পাশের বাড়ির নূর আলম লুথু লোকজন ও সন্ত্রাসী বাহীনি নিয়ে বাধা প্রদান করেন। পরবতীতে ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবহান লিটনের যোগসাজশে ঘটনাটি আরও জোরালো হয়। কাউন্সিলর ১ লক্ষ টাকা দিলে সমস্যার সমাধান করে দিবেন বলে জানিয়েছেন। এরপর আমি আরএমপি’র বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। থানা কর্তৃপক্ষ উভয় পক্ষকে একসাথে করে জমি মেপে সঠিকভাবে মীমাংসা করে নিতে বলেন। থানায় অভিযোগ দেয়ার পর থেকে বিভিন্ন লোক মারফত আমাকে প্রাণনাশ করাসহ বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। এঘটনার পর থেকে আমি আমার জমির ওপর যেতে পারছি না এবং ভীষণ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এমতাবস্থায় সাংবাদিকদের মাধ্যমে মাননীয় মেয়র ও পুলিশ কমিশনারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন, আমার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা প্রদানসহ আমার নিজ জমি দখলমুক্ত করে সঠিক বিচারের ব্যবস্থা করা হোক।

তিনি সংবাদ সম্মেলনে আরও বলেন, এর আগেও তারা আদালতে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছিলো। তা মহামান্য আদালত খারিজ করে দিয়েছেন। আমার পৈতৃক সম্পত্তি দখল করে দেওয়ার জন্য ১৫ নং কাউন্সিলর আব্দুস সোবহান লিটনকে হাত করে একদল সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে নানা ষড়যন্ত্র করছেন।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সুবাহান লিটন বলেন, নূর আলম লুথুর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমি উভয় পক্ষকে জায়গা মাপার জন্য ডেকেছিলাম। টাকা চাওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়৷ জায়গা দখল করে দেয়া কাউন্সিলরের কাজ নয়।

কথা বলতে নূর আলম লুথুকে একাধিকবার ফোন দেওয়া হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

বিষয়:
পরবর্তী খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দিনভর নানান কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। রবিবার সকালে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য শুরু হয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান। পরে নেতাকর্মীরা শহরের বঙ্গবন্ধু মঞ্চে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানান।

বিকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে শহীদ মিনার চত্বরে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য মুঃ জিয়াউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন– জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল ওদুদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নারী সংসদ সদস্য জারা জাবীন মাহবুবসহ অনান্যরা।

পরে নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে শহরে বিশাল শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক ঘুরে আবারও অনুষ্ঠান স্থলে এসে শেষ হয়। শেষে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের এ আয়োজনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা ছাড়াও জেলার অনান্য উপজেলা থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এসে যোগ দেয়। এতে শহর জুড়েই যেন ছিলো উৎসব।

পরবর্তী খবর

‘সবার জন্য শিল্পচর্চা’ স্লোগানে রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্রের যাত্রা শুরু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের ফিল্টিপাড়ায় কোল ক্ষুদ্র জাতিসত্তার পরিবারের শিক্ষার্থীদের সম্পূর্ণ বিনাবেতনে শিল্পচর্চা চালু করলো রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্র। শনিবার বিকেলে রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়।

ঝিলিম ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফুল হাসানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা ফারুকুর রহমান, প্রথম আলো স্টাফ রিপোর্টার আনোয়ার হোসেন দিলু, জেলা স্কাউটসের সহকারী কমিশনার আশরাফুল আম্বিয়া, সম্পাদক গোলাম রশীদ, জজ কোর্টের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ভব সুন্দর পাল, কোলদের নারী নেত্রী কল্পনা মুরমু, কবি ইহান অরভিন, আনিফ রুবেদ, ইউপি সদস্য শরিয়ত আলী, সুশান্ত সাহা, ইউপি সচিব মৃণাল কান্তি পাল, চারুশিল্পী সমর সাহা, শিক্ষক ও বাদ্যশিল্পী রাজকুমার দাস, সমাজসেবক স্বপন কুমার ঘোষ প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য দেন রঙের ভাষা আর্ট এন্ড ডিজাইন স্কুলের পরিচালক জগন্নাথ সাহা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন স্কুল শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম।

বক্তারা বলেন, পিছিয়ে পড়া ক্ষুদ্রজাতিসত্তার শিশুদের এগিয়ে নেওয়ার জন্য রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্র কাজ করবে। সামর্থ্য অনুযায়ী এ শিল্প চর্চা কেন্দ্রের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন বক্তারা।

এ কেন্দ্রের পরিচালক জগন্নাথ সাহা বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ের ১৫ জন ও মাধ্যমিক পর্যাযের ১৫ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে যাত্রা শুরু করবে রঙের ভাষা শিল্পচর্চা কেন্দ্র। এখানে চিত্রাঙ্কনসহ কুটির শিল্প বিষয়ক শিক্ষা দেওয়া হবে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত