শিক্ষা

শিক্ষা

ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটির একাডেমিক কাউন্সিলের সভা অনুষ্ঠিত

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির একাডেমিক কাউন্সিলের ৩৪ তম সভা শনিবার (২৭ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স হলে উপাচার্য প্রফেসর ড. এম লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উপাচার্যের বিশেষ আমন্ত্রণে একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান, ট্রাস্টি বোর্ডের মনোনীত সদস্য হিসেবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব মোঃ সামসুল আরেফিন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. এস এম মাহবুব-উল হক মজুমদার, রেজিস্ট্রার ড. নাদির বিন আলী, কোষাধ্যক্ষ হামিদুল হক খান, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর ড. ইসমাইল জবিউল্লাহ অংশগ্রহণ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা সংক্রান্ত সার্বিক বিষয় তুলে ধরেন এবং বিভিন্ন অনুষদের ডিনগণ তাদের নিজ নিজ অনুষদের পাঠ্যক্রম উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন বিষয়াদি অন্তর্ভুক্তির জন্য প্রস্তাব পেশ করেন। একাডেমিক কাউন্সিল বিস্তারিত আলোচনার পর সর্বসম্মতিক্রমে সেগুলো গ্রহণ করে। পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ২০২২ সালের বিভিন্ন প্রোগ্রামের ডিগ্রি অনুমোদনের প্রস্তাব করলে সেটি সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়। রেজিস্ট্রার ড. নাদিও বিন আলী সভায় আনুষঙ্গিক তথ্যসমূহ সরবরাহ করেন।

সভায় ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির একাডেমিক অ্যাফেয়ার্সের ডিন প্রফেসর ড. মোস্তফা কামাল, বাণিজ্য ও উদ্যোক্তাবৃত্তি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মাসুম ইকবাল, মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. লিজা শারমিন, বিভাগীয় প্রধানগণ, ইন্সটিটিউট প্রধানগণ, বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজের প্রতিনিধি, সিন্ডিকেট মনোনীত প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় অন্যান্য আলোচনার পাশাপাশি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মো. সবুর খান বলেন, আমাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান সাফল্য অর্জিত হয়েছে। আজকে অন্যান্য অনেক প্রতিষ্ঠানের কাছে এই বিশ্ববিদ্যালয় এখন ঈর্ষণীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। এই ধারা অব্যহত রাখতে আমাদের আরো প্রাণান্তকর প্রচেষ্টায় কাজ করতে হবে।

সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্যবৃন্দ ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ক্রমাগত সাফল্যের ধারাবাহিকতার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং আগামীতে এ ধারা অব্যাহত রাখতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

বিষয়:
পরবর্তী খবর

নোবিপ্রবিতে রয়্যাল ইকোনমিক্স ক্লাবের নতুন কমিটি গঠন

সভাপতি রিয়াজুল ও সাধারণ সম্পাদক তাসমিয়া

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) তে অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘রয়্যাল ইকোনমিক্স ক্লাব (আরইসি)-এর নতুন কমিটির ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ ই মে) সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস অডিটোরিয়াম ভবনের আইকিউএসি সেমিনার কক্ষে সংগঠনটির বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক মুহাইমিনুল ইসলাম সেলিম।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও সংগঠনের উপদেষ্টা সাদ্দাম হোসেন রাজু এবং বিভাগের প্রভাষক আতিক হাসান। এসময়ে আরইসি’র সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নোবিপ্রবির অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান সহকারী অধ্যাপক মুহাইমিনুল ইসলাম সেলিম প্রধান অতিথি হিসেবে এসময়ে নতুন কার্যনির্বাহী কমিটির ঘোষণা করেন। নতুন কার্যনির্বাহী কমিটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে নোবিপ্রবির অর্থনীতি বিভাগের ২০১৯-২০ সেশনের শিক্ষার্থী যথাক্রমে রিয়াজুল কবির তালুকদার ও তাসমিয়া বিনতে সাদেক।

এছাড়াও সহ সভাপতি হিসেবে ফারজানা জেসমিন কলি,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে স্মৃজিতা চাকমা, কোষাধ্যক্ষ পদে আজমির হোসেন, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি শামস উদ্দিন চৌধুরী, ডেপুটি মাহফুজুল কবির, আফসানা জামান সুইটি, এক্সিকিউটিভ হিসেবে হাফিজুর রহমান, আবেদুন নাহার ভূইয়া, আব্দুল্লাহ আল মামুন, চন্দন দেবনাথ নির্বাচিত হন।

তাছাড়া পাবলিক রিলেশন সেক্রেটারি হিসেবে আসিফ ইমতিয়াজ, ডেপুটি সায়েমা সুলতানা এবং এক্সিকিউটিভ পদে রিয়াদ সরকার, জান্নাত অহনা, স্বপ্নীল পাল তূর্য্য। পাশাপাশি রিসার্স উইং সেক্রেটারি হিসেবে মারজাহান বেগম ঝুমুর, ডেপুটি কামরুন নাহার, মো. ফাহিম, মোস্তাইন হৃদয়; এক্সিকিউটিভ পদে মোহাম্মদ তারেক হাসান, রুকাইয়া তাসনিম ও ফারিহা বিনতে ইসলাম নির্বাচিত হন।

এছাড়াও ডিজাইন ও পাবলিকেশন সেক্রেটারি হিসেবে নুশেরা নাজরিন জুঁই ওডেপুটি আব্দুল্লাহ আল কাইয়ুম এবং এক্সিকিউটিভ পদে মো. শিহাব হোসেন, মো. তানভির ইশতিয়াক ও মৃত্তিকা দাস নির্বাচিত হন। পাশাপাশি ডিবেট উইং সেক্রেটারি পদে জান্নাতুল ফেরদৌস ইরা, ডেপুটি আইনুল হাসনাত রাজু এবং এক্সিকিউটিভ পদে আবরার হোসেন আবেদ, সুব্রত দে ও নাইমা ইসলাম নির্বাচিত হয়েছেন।

তাছাড়া কালচারাল উইং সেক্রেটারি হিসেবে নুর আসমা মিম, ডেপুটি সেক্রেটারি জান্নাতুল নাঈম লিজা এবং এক্সিকিউটিভ পদে ফাইজা হাসান তিনা ও সামিয়া আফরিন স্বর্না নির্বাচিত হয়েছেন।

পরবর্তী খবর

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি

সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ আয়োজন

নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (নোবিপ্রবিসাস) আয়োজনে দিনব্যাপী ‘সাংবাদিকতায় বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ’ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন-২ এর ভিডিও কনফারেন্স রুমে এই কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। দিনব্যাপি এ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ প্রদান করেন ডেইলি সানের অনলাইন প্রধান মওদুদ আহম্মেদ সুজন,প্রথম আলোর স্টাফ রিপোর্টার
ফয়জুল্লাহ ওয়াসিফ এবং একেশন রাইটার অ্যান্ড ইনফরমেশন প্রফেশনাল সাইফ সুজন।

নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আব্দুল কবীর ফারহানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত আহমেদ ফাহিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড.দিদার-উল-আলম,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির উপদেষ্টা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড.নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর।

কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ও নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর বলেন, নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতি প্রতিষ্ঠার পর থেকে মাসিক সাধারণ সভা,শিক্ষানবিশ সাংবাদিকদের ট্রেনিং, নির্বাচনসহ সকল কাজ নিয়মতান্ত্রিকভাবে উপায়ে নিয়মিত পরিচালনা করে আসছে। তারা তাদের পেশাগত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করছে।সাংবাদিকরা ক্যাম্পাসকে সারা দেশের সামনে তুলে ধরছে পাশাপাশি তারা ক্যাম্পাসের সমস্যাগুলোকেও গঠনমূলক সমালোচনার মাধ্যমে তুলে ধরে সমাধানের চেষ্টা করছে।

তিনি আরোও বলেন, অনেক সাংবাদিকরা না জেনে বিশ্ববিদ্যালয়কে ভুলভাবে উপস্থাপন করার মাধ্যমে ক্যাম্পাসের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে যেভাবে সহযোগিতা করা দরকার আমরা আমাদের সীমাবদ্ধতার কারণে তা অনেক ক্ষেত্রেই করতে পারছি না। আমি নোবিপ্রবি সাংবাদিক সমিতির সকল কাজের উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করছি। আশা করছি আজকের কর্মশালার মাধ্যমে অনেক উদীয়মান সাংবাদিক উঠে আসবে যারা ভবিষ্যতে সাংবাদিক সমিতিকে নেতৃত্ব দিবে।

নোবিপ্রবি উপাচার্য ও সাংবাদিক সমিতর প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড. দিদিদার-উল-আলম বলেন, সংবাদপত্র হচ্ছে শক্তিশালী একটা মিডিয়া। কিছু সাংবাদিক সৎ থাকলেও অনেকেই হলুদে বিশ্বাস করে। খুব সুক্ষ্মভাবে অনেকেই নিয়োগ বাণিজ্য করে। আমার কাছে সোজা, আমার কাছে এগুলা নাই। বিগত পাঁচ বছরে কেউ বলতে পারবে না নারায়নগঞ্জের কাউকে আমি নিয়োগ দিয়েছি। আমি চেষ্টা করি সততার সাথে চলার। কারণ আমার একটা অস্ত্র আছে, সেটি হচ্ছে বিশ্বাস। নীতি অক্ষুণ্ণ রেখে সবাই সাংবাদিকতা করবে আমার বিশ্বাস। সংবাদে অন্ততপক্ষে যেন ৫০ ভাগ সত্যতা থাকে। এর চেয়ে কম হলে সে আমার কাছে ভালো সাংবাদিক না। এটা বলার আমার সাহস আছে কারণ আমি কোন অনিয়মের সাথে সম্পৃক্ত নই, এটুকু বিশ্বাস আমার আছে।

সর্বশেষ সর্বাধিক পঠিত